ট্রাম্প সরকারের মামলায় ফাঁসতে চলেছে গুগল

নিজস্ব প্রতিবেদক:নিজস্ব প্রতিবেদক:
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:০৭ পূর্বাহ্ণ, ১৭ মে ২০২০




অনলাইন বিজ্ঞাপন প্রশ্নে গুগলের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে মার্কিন সরকার। বাজারকে একচেটিয়া করে ফেলা এবং প্রতিযোগিতা বিমুখ বিজ্ঞাপনী রেওয়াজের জন্যই মামলার সম্মুখীন হতে হচ্ছে গুগলকে।

বিচার বিভাগ এবং অঙ্গরাজ্যের আইনজীবীদের একটি দলের ওই অ্যান্টিট্রাস্ট মামলাটি করার কথা রয়েছে উল্লেখ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রের বরাত দিয়ে শুক্রবার (১৫ মে) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

অপরদিকে, আইএএনস-এর এক প্রতিবেদন বলছে, অল্প কিছুদিনের মধ্যেই সম্ভবত মামলা করবে বিচার বিভাগ। ‘মামলাটি করতে পারেন টেক্সাসের অ্যাটর্নি জেনারেল কেন প্যাক্সটন, এবং সম্ভবত এই শরতেই।’

গত বছরের সেপ্টেম্বরে টেক্সাসের নেতৃত্বে ৫০টি মার্কিন অঙ্গরাজ্যের অ্যাটর্নি জেনারেলরা মিলে গুগলের বিরুদ্ধে এক তদন্ত শুরুর ঘোষণা দেন। গুগল অনলাইন বিজ্ঞাপন বাজার এবং ইন্টারনেট সার্চে আধিপত্য বিস্তারী কিনা তা জানার লক্ষ্যেই ওই তদন্ত শুরু হয়।

ওই তদন্ত বিষয়ে প্যাক্সটন বলছেন, এর প্রাথমিক লক্ষ্য ছিলো গুগলের অনলাইন বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্কের বড় পরিসর।

তিনি বলেন, ‘প্রায় সব জীবিত মানুষের ব্যাপারেই গুগলের সাত হাজার ডেটা পয়েন্ট রয়েছে বলে আমাদের ধারণা। তারা (অনলাইন বিজ্ঞাপনের) ক্রয়-অংশ, বিক্রয়-অংশ এবং বাজার নিয়ন্ত্রণ করে, যা আমাদের উদ্বিগ্ন করে তুলেছে যে তাদের হাতে অনেক বেশি ক্ষমতা চলে গেছে।’

এ দিকে, ভার্জকে দেওয়া এক বিবৃতিতে গুগল বলেছে, ‘আমরা বিচার বিভাগ এবং জেনারেল প্যাক্সটন নেতৃত্বাধীন চলমান তদন্তের সঙ্গে রয়েছি। তবে, গুজবের ব্যাপারে আমাদের কোনো আপডেট বা মন্তব্য নেই।’

অন্যদিকে, আইএএনএস উল্লেখ করেছে- চলমান ওই অ্যান্টি-ট্রাস্ট তদন্তের অংশ হিসেবে এক লাখেরও বেশি নথি হস্তান্তর করেছে গুগল। এর আগে এ ধরনের বড় মামলা হয়েছিল মাইক্রোসফটের নামে। ১৯৯০-এর দশকে বিল ক্লিনটনের প্রশাসন ওই উদ্যোগ নিয়েছিল।

গত বছর গুগলকে অনলাইন সার্চ বাজারে আধিপত্য বিস্তার প্রশ্নে ১৪৯ কোটি ইউরো (১৭০ কোটি ডলার) জরিমানা করেছিলেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের অ্যান্টি-ট্রাস্ট নিয়ন্ত্রকরা।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রভাতী নিউজ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।