ঝড়ে শত বছরের বট গাছ উপরে পড়ায় শিবগঞ্জে ৫ ইউনিয়নের ২ লক্ষ মানুষের উপজেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন




গত ২৬ মে দিবাগত রাতে আকস্মিক ভাবে বয়ে যাওয়া ঝড়ের তান্ডবে বগুড়ার শিবগঞ্জ-পিরব সড়কের সংসারদীঘি নামক স্থানে কালেরসাক্ষী শত বছরের বটবৃক্ষ রাস্তায় পড়ে গেলেও কতর্ৃৃপক্ষের অবহেলার কারণে গত কয়েক দিন যাবত উপজেলার বুড়িগঞ্জ, পিরব, বিহার, মাঝিহট্ট, আটমূল ইউনিয়নের ২লক্ষ মানুষের উপজেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগ সম্পূর্ণ রূপে বিচ্ছিন্ন হয়েছে। বর্তমানে ইরি ধান কাটার সময় ওই এলাকার কৃষকরা সময় মত তাদের কৃষি কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি নিয়ে যেতে পারছে না। রাস্তায় গাছ পড়ে প্রতিবন্ধকরার কারণে কৃষকদের উৎপাদিত কৃষি পণ্য বাজার জাত করতে পারছে না। ফলে কৃষকরা আর্থিক ভাবে ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছে।

এ দিকে উপজেলার ঐতিহ্যবাহি বুড়িগঞ্জ ও পিরব হাটে সাধারণ মানুষরা যেতে না পারায় বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। প্রতিদিন বট গাছটির দু’ধারে সিএনজি, অটোরিক্সা সহ বিভিন্ন যান বাহন চলাচলতে করে না পারায় যান জট সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে সাধারণ মানুরে মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে।

এব্যাপারে সংসারদিঘী গ্রামের কৃষক হারুন ভান্ডারী ও রবিউল ইসলাম বলেন, বট গাছটি রাস্তা থেকে দ্রুত অপসরণ না করার জন্য আমরা সময় মত হাট বাজারে যেতে পারছি না এবং আমাদের ধান কেটে বাড়িতে নিয়ে আসতে সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর কবীর বলেন, জন সাধারণের যাতায়াতের জন্য দ্রুত বট গাছটি রাস্তা থেকে অপসারণ করা হবে। এ ব্যাপারে পিরব ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফি বলেন, ঝড়ে গাছ পড়ে যাবে এটাই স্বাভাবিক কিন্তু গাছ অপসারণ করতে দীর্ঘ সময় লাগবে এটা আমরা ভাবিনী।

তিনি আরো বলেন এ এলাকার ৫টি ইউনিয়নের ২লক্ষাধিক মানুষ শিবগঞ্জ সদরে যাতায়াত করে থাকেন। এ ব্যাপারে বিহার ইউপি চেয়ারম্যান মহিদুল ইসলাম বলেন, গাছের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করেছি।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রভাতী নিউজ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।