নিয়ামতপুরে শ্বশুড় বাড়ীতে স্ত্রীকে কাঁচি দিয়ে গলা কেটে হত্যা, ঘাতক স্বামী গ্রেফতার




নওগাঁর নিয়ামতপুরে শ্বশুড় বাড়ীতে স্ত্রীকে কাঁচি দিয়ে গলা কেটে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। ঘাতক স্বামীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটে উপজলার পাড়ইল ইউনিয়নের ধানসা গ্রামে।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার সকাল ৬টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল পৌরসভার মুরাদপুর গ্রামের আজিজুল ইসলামের ছেলে সালাউদ্দিন টুনী (২০) তার স্ত্রী নিয়ামতপুর উপজেলার পাড়ইল ইউনিয়নের ধানসা গ্রামের আবুল কালাম আজাদের কন্যা জেবা খাতুনকে (১৮) কাঁচি দিয়ে গলা কাটে। আহত অবস্থায় জেবাকে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে সকাল সাড়ে ৬টায় সে মারা যায়।

নিহত জেবা খাতুনের বাবা আবুল কালাম আজাদ এ প্রতিবেদককে বলেন, আমার মেয়ে জেবার প্রায় এক বছর পূর্বে চাঁপাইনবাবঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলার মুরাদপুরের আজিজুল ইসরামের ছেলে সালাউদ্দিন এর সাথে বিয়ে হয়। ভালই চলছিল মেয়ে-জামাই এর সংসার। হঠাৎ গত সোমবার আমার মেয়ে-জামাই আমার বাড়ীতে বেড়াতে আসে। মঙ্গলবার রাতে সামান্য কথা কাটাকাটিতে জামাই রাতেই বাড়ীতে চলে যেতে চাইলে আমরা বুঝিয়ে রাখি। মেয়ে-জামাই রাতে একই ঘরে থাকে। আজ বুধবার সকাল ৬টায় আমি ও আমার স্ত্রী বাড়ীর বাইরে গরু ছাগল বের করে বসে ছিলাম। মেয়ে-জামাই বাড়ী চলে যাবে বলে আমি আমার স্ত্রীকে নাস্তা বানানোর জন্য বললে আমার স্ত্রী বাড়ীতে চলে যায়। হঠাৎ মেয়ের চিৎকার শুনে আমরা স্ত্রী ঘরের দরজা খোলা চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। দরজার শব্দ পেয়ে আমিও ছুটে যাই। যেয়ে আমিও দরজা খুলতে চেষ্টা করে ব্যর্থ হই। শেষে আমার চাচাতো ভাই এসে লাথি মেরে দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে দেখি ঘাতক জামাই সালাউদ্দিন আমার মেয়ের বুকের উপর উঠে বড় কাঁচি দিয়ে গলা কেটেছে, গালে কপালে কাঁচি দিয়ে আঘাত করেছে। তখন কাঁচি আমার ঘাতক জামাই সালাউদ্দিনের হাতে ছিল। সে উম্মাদের মত বলছে আমি আপনার মেয়েকে মেরে ফেলেছি। আমাকে যা ইচ্ছে করেন। আমরা অজ্ঞান অবস্থায় মেয়েকে উদ্ধার করে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে সকাল সাড়ে ৬টায় জেবা মারা যায়।

নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইন চার্জ হুমায়ন কবির বলেন, আমি সংবাদ পেয়ে ফোর্স পাঠিয়ে লাশ উদ্ধার করি এবং হত্যাকারী সালাউদ্দিনকে গ্রেফতার করি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে স্বামী-স্ত্রীর দ্বন্দ্বের কারণে স্বামী সালাউদ্দিন স্ত্রী জেবা খাতুনকে কাঁচি দিয়ে গলা কাটে। রক্তক্ষরণে হাসপাতালে সকাল সাড়ে ৬টায় সে মারা যায়। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘাতক সালাউদ্দিনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রভাতী নিউজ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।