ঈদুল আযহার পূর্বে রূপালী ব্যাংক শিওরক্যাশের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা পেলো উপবৃত্তির টাকা




লালমনিরহাটে ঈদুল আযহার পূর্বে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য বিগত বছরগুলোর ধারাবাহিকতায় এবারও ২০১৯/২০২০ অর্থ বছরের তৃতীয় কিস্তির উপবৃত্তি কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

এই প্রকল্পের আওতায় ১ কোটি ৪০ লক্ষ সুবিধাভোগী অভিভাবক এই সহায়তা পেয়ে থাকেন।

লালমনিরহাট জেলার ৫ টি উপজেলা ( লালমনিরহাট সদর, আদিতমারি, কালিগঞ্জ, হাতীবান্ধা এবং পাটগ্রাম ) এর মধ্যে চারটি উপজেলা লালমনিরহাট সদর, আদিতমারী, কালিগঞ্জ এবং হাতীবান্ধায় ৬২৬ টি স্কুলে ৮৫,০৩৩ জন শিক্ষার্থীর মোট ৩ কোটি ৯৮ লক্ষ ৯০ হাজার ৯২৫ টাকা প্রদান করা হয়েছে।

এরপর পর্যায়ক্রমে পাটগ্রাম উপজেলাতেও শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা প্রদান করা হবে বলে জানা গেছে।

অভিভাবকরা এই টাকা তাদের নিকটস্থ রূপালী ব্যাংক শিওরক্যাশ এজেন্ট পয়েন্ট থেকে সহজেই তুলে নিতে পারবেন। প্রাথমিক শিক্ষার উপবৃত্তির টাকা করোনা সংকটকালে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে হাতে পৌছে দেয়ায় আনন্দিত স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের মায়েরা।

রুপালী ব্যাংক শিওরক্যাশের বিস্তৃত নেটওয়ার্কের কারনে ঘরের পাশ থেকেই ব্যাংকিং সেবা নিয়ে স্বস্তি জানিয়েছেন অভিভাবকরা।

এছাড়াও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের উপহার সারাদেশের ৫০ লক্ষ পরিবারের মধ্যে ৮ লক্ষ পরিবারের ২৫০০ টাকা করে পৌঁছে দিচ্ছে রূপালী ব্যাংক ”শিওরক্যাশ”।

এ বিষয়ে  রংপুর দিনাজপুর অঞ্চলের ‘শিওরক্যাশের’ এরিয়া ম্যানেজার মোঃ মহিবুর রহমান বলেন, রূপালী ব্যাংক ‘শিওরক্যাশ’ সবসময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের জন্য সাথে থেকেই কাজ করে যাচ্ছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশের অন্যতম একটি সফল উদ্যোগ হলো মোবাইল ব্যাংকিং সেবা যার ব্যাপ্তি আশাতীতভাবে সম্প্রসারিত হয়েছে। তিনি প্রধানমন্ত্রীর এমন উদ্যেগের ভুয়শী প্রশংসা করেন এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি আরো বলেন, উপবৃত্তির এবং প্রনোদনার টাকা উত্তোলন সম্পূর্ণ ফ্রি। কোন খরচ ছাড়াই এই টাকা উত্তলোন করা যাচ্ছে ‘শিওরক্যাশ’ এজেন্ট থেকে।

একই সাথে এই অঞ্চলের সকল এজেন্ট , ডিস্ট্রিবিউটর এবং শিওরক্যাশে কমকর্তাদের এমন একটি উদ্যেগের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

দেশের এই পরিস্থিতিতে সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রভাতী নিউজ সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।